করোনা সচেতনতায় ব্র্যাক: সারা দেশে জোরদার প্রচারণা

করোনা প্রতিরোধে ব্র্যাকের প্রধান কার্যালয়ের কর্মীরা আগামী রোববার (২২ মার্চ) থেকে অফিসে আসবেন না। তারা বাসায় বসেই অফিসের দায়িত্ব পালন করবেন।

মহাখালীতে ব্র্যাকের প্রধান কার্যালয়ে দুই হাজার কর্মী কাজ করেন। এদের মধ্যে যারা বর্তমান পরিস্থিতিতে জরুরি কাজে নিয়োজিত নয় (নন এসেনশিয়াল স্টাফ) তারা আগামী রবিবার থেকে অফিসে আসবেন না। সামনের সপ্তাহ পুরোটাই এভাবে চলবে। পরবর্তী শনিবার (২৮শে মার্চ) পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে কর্তৃপক্ষ নতুন সিদ্ধান্ত জানাবেন।

আজ বুধবার (১৮ই মার্চ) সকালে ব্র্যাকের শীর্ষ কর্মকর্তাদের এক জরুরি সভার পর এই ঘোষণা দেন প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ্। পাশাপাশি প্রধান কার্যালয়ের বাইরে দেশব্যাপী ব্র্যাককর্মীদের সীমিত পরিসরে সতর্কতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করতে বলা হয়েছে।

সমাজের অন্যদের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধিতেও কাজ করবে ব্র্যাক। দেশজুড়ে ব্র্যাকের কর্মী ও স্বাস্থ্যসেবী মিলিয়ে প্রায় এক লাখ লোক এই সচেতনতা বৃদ্ধির কাজ করবেন। ইতিমধ্যে ব্র্যাকের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, ব্লগ ও ওয়েবসাইটে করোনা ভাইরাসের সঙ্গে সম্পর্কিত সকল ধরনের তথ্য হালনাগাদ করা হচ্ছে। ব্র্যাকের ওয়েবসাইটে একটি আলাদা পোর্টাল (http://www.brac.net/covid19/) খোলা হয়েছে, যেখান থেকে সবাই নির্ভরযোগ্য ও হালনাগাদকৃত তথ্য পেতে পারে।

আসিফ সালেহ বলেন, এই সঙ্কট মোকাবেলায় সরকারকে সহযোগিতা করতে ব্র্যাক সবসময়ই প্রস্তুত। কোভিড-১৯ শনাক্তের জন্য সারা দেশে পর্যাপ্ত কিট সরবরাহের ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সরকারের প্রতি অনুরোধ জানান তিনি।

আমাদের কর্মস্থল

                

ব্র্যাক কুইজ

কোনটি দারিদ্র্য দূরীকরনের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি কার্যকরী?

বিকল্প যোগাযোগ পন্থা