লেভ তলস্তয় স্বর্ণপদক পেলেন স্যার ফজলে হাসান আবেদ

০২ জুন ২০১৪। রাশিয়ান চিলড্রেন ফান্ড প্রদত্ত লেভ তলস্তয় আন্তর্জাতিক স্বর্ণপদকে ভূষিত হয়েছেন ব্র্যাকের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারপারসন স্যার ফজলে হাসান আবেদ। ০১ জুন ২০১৪ আন্তর্জাতিক শিশুদিবস উপলক্ষে মস্কোর ঐতিহ্যবাহী বলশয় থিয়েটারে তাঁকে এই পদক দিয়ে সম্মানিত করেন সংগঠনটির নেতা প্রখ্যাত লেখক আলবার্ট এ লিখানভ।  এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য পুরো রাশিয়া থেকে ১১ হাজার শিশু মস্কোতে সমবেত হয়।


মস্কোর ঐতিহ্যবাহী বলশয় থিয়েটারে প্রখ্যাত লেখক আলবার্ট এ লিখানভের হাত থেকে পুরস্কার গ্রহণ করছেন স্যার ফজলে হাসান আবেদ।

প্রতি বছর শিশুদের শিক্ষা ও সেবাদানের ক্ষেত্রে তাৎপর্যপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ রাশিয়ান চিলড্রেন ফান্ড থেকে এই পুরস্কার দেওয়া হয়। এর আগে এই পুরস্কার পেয়েছেন মাদার তেরেসা, পোলিও ভ্যাকসিনের উদ্ভাবক আলবার্ট সেবিন এবং সুইডেনের শিশুসাহিত্যিক অস্ট্রিড লিন্ডগ্রেন।

পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানের শুরুতে অনাথ, প্রতিবন্ধী ও পিছিয়ে পড়া শিশুদের নিয়ে এক গালা কনসার্টের আয়োজন করা হয়। স্যার আবেদ সেখানে ‘গেস্ট অব অনার’ হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। পুরস্কার গ্রহণের পর স্যার আবেদ বলেন, ‘আমাকে এবং ব্র্যাককে এই সম্মান প্রদর্শন করায় রাশিয়ান চিলড্রেন ফান্ডকে আমি ধন্যবাদ জানাই। গত তিন দশক ধরে ব্র্যাক জনসাধারণের, বিশেষ করে নারী ও শিশুদের  ক্ষমতায়ন ও শিক্ষার মাধ্যমে জীবনমান উন্নয়নের সুযোগ সৃষ্টির জন্য নানা কর্মসূচি পরিচালনা করছে। রাশিয়ান চিলড্রেন ফান্ড তাদের দেশের  অগণিত সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সুরক্ষায় যে নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে, সেজন্য এই সংগঠনটিকে আমি আন্তরিক সাধুবাদ জানাই।’

শিশুদের সুরক্ষার জন্য ১৯৯১ সালের সেপ্টেম্বর মাসে রাশিয়ান চিলড্রেন ফান্ডের যাত্রা শুরু হয়। বর্তমানে ৭৪টি আঞ্চলিক অফিসের মাধ্যমে এটি রাশিয়ার অভাবী শিশুদের সামাজিক সহায়তাদানে সক্রিয়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

ব্র্যাক ১৯৭২ সালে প্রতিষ্ঠিত একটি উন্নয়ন সংস্থা যা দরিদ্রদের ক্ষমতায়নের মাধ্যমে দারিদ্র্য বিমোচন এবং তাদের জীবনমানে ইতিবাচক পরিবর্তন আনার লক্ষ্যে কাজ করছে। বর্তমানে বিশ্বের সাড়ে তের কোটি মানুষ ব্র্যাকের সেবার আওতাভুক্ত।

আমাদের কর্মস্থল

                

ব্র্যাক কুইজ

কোনটি দারিদ্র্য দূরীকরনের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি কার্যকরী?

বিকল্প যোগাযোগ পন্থা