"শুধু উৎপাদন বৃদ্ধি নয় কৃষকের পণ্য বাজারজাত করা নিয়েও ভাবতে হবে" - ব্র্যাকের কর্মশালায় বক্তারা


১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৪, ঢাকা। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলায় এক ফসলি শস্য থেকে দোফসলি শস্য এবং ধান, পাট, সূর্যমূখী, টমেটো ইত্যাদির উন্নত জাতের ফলনের ওপর জোর দেওয়া উচিত। এক্ষেত্রে বড় চ্যালেঞ্জগুলো হচ্ছে-জমির জলাবদ্ধতা এবং দেশের দক্ষিণাঞ্চলে লবণাক্ততা দূরীকরণে স'ায়ী ব্যবস'া না থাকা। অন্যদিকে কৃষকদের ন্যায্যমূল্য পাওয়ার স্বার্থে শুধু কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি  নয়, পাশাপাশি তাদের উৎপাদিত পণ্য কিভাবে বাজারজাত করতে হবে তা নিয়ে জরুরি ভিত্তিতে ভাবতে হবে।

রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে আজ মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) আয়োজিত ‘কৃষি ও অ্যাকুয়াকালচারে দক্ষিণাঞ্চলের কৃষকদের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে ব্র্যাকের ভূমিকা’ শীর্ষক এক কর্মশালায় বক্তারা এ অভিমত ব্যক্ত করেন। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মহাপরিচালক (বীজ উইং) ও কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব  আনোয়ার ফারুক। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা পরিষদের নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. মো. কামাল উদ্দিন ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কৃষিবিদ মো: আবু হানিফ মিঞা। অনুষ্ঠানে  সভাপতিত্ব করেন ব্র্যাকের উর্ধ্বতন পরিচালক বাবর কবির। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ব্র্যাকের কমিউনিকেশন্স ও অ্যাডভোকেসি ফর সোশ্যাল চেইঞ্জ এর কর্মসূচি প্রধান স্নিগ্ধা আলি। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস'াপন করেন  ব্র্যাকের কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা বিভাগের কর্মসূচি প্রধান ড. সিরাজুল ইসলাম। ব্র্যাকের কমিউনিকেশন্স ও অ্যাডভোকেসি ফর সোশ্যাল চেইঞ্জ কর্মসূচি এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আনোয়ার ফারুক বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের চেয়ে বড় বিষয় কৃষকদের উৎপাদিত পণ্য কিভাবে সঠিকভাবে বিপণন ব্যবস'ার সঙ্গে সম্পৃক্ত করা যায় সে বিষয়টির উপর জোর দেওয়া। কারণ যতই উৎপাদন বৃদ্ধি হোক না কেন, কৃষক উৎপাদিত পণ্যের ভালো দাম না পেলে তা কোন কাজেই আসবে না।

মূল প্রবন্ধে ড. সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমাদের মূল লক্ষ্য হচ্ছে কৃষকদের মধ্যে জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে খাপ খাওয়াতে সক্ষম প্রযুক্তির সর্বোত্তম সম্প্রসারণ ও তার কার্যকারিতা বাস-বায়নে সহযোগিতা প্রদান। এজন্য আমরা দেশের দক্ষিণাঞ্চলকে বিশেষভাবে গুরুত্ব দিচ্ছি।
 

আমাদের কর্মস্থল

                

ব্র্যাক কুইজ

কোনটি দারিদ্র্য দূরীকরনের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি কার্যকরী?

বিকল্প যোগাযোগ পন্থা