শিশুর জন্য নিরাপদ সড়ক শীর্ষক বার্তা নিয়ে বিশ্ব নিরাপদ সড়ক কার্যক্রম সপ্তাহ পালিত

গত ২১-২৭ মে পালিত হয়ে গেল ‘গ্লোবাল উইক অফ অ্যাকশন অন রোড সেফটি’। এই উপলক্ষ্যে শিশুস্বাস্থ্য বিষয়ক আন্তর্জাতিক সংস্থা চাইল্ড হেলথ ইনিশিয়েটিভ নিউইয়র্ক জাতিসঙ্ঘের ওয়ার্ল্ড হেলথ অ্যাসেম্বলিতে জনস্বাস্থ্য উন্নয়নে সড়ক দুর্ঘটনা হ্রাসের গুরুত্ব তুলে ধরে এবং এক্ষেত্রে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার জন্য বিশ্ব নেতৃত্বকে আহ্বান জানায়। সংস্থাটি জার্মানির লিপজিগে ইন্টারন্যাশনাল ট্রান্সপোর্ট ফোরামের সাম্প্রতিক সম্মেলনেও একই বক্তব্য তুলে ধরে। এক্ষেত্রে বিশেষ করে সড়কে শিশুর নিরাপদ চলাচলের বিষয়টিকে সামনে রেখে সংস্থাটি বিশ্বব্যাপী বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থাগুলোকে এবারের আন্তর্জাতিক সড়ক নিরাপত্তা কার্যক্রম সপ্তাহ পালনে আহ্বান জানায়।

চাইল্ড হেলথ ইনিশিয়েটিভের এই আহ্বানে সাড়া দিয়ে ‘গ্লোবাল অ্যালায়েন্স অফ এনজিওস ফর রোড সেফটি’ নামে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থাগুলোর আন্তর্জাতিক জোট সপ্তাহটি পালনের উদ্যোগ নেয়। জোটের সদস্য হিসাবে ব্র্যাক বাংলাদেশে শিশু এবং অন্যান্য অংশীদারদের নিয়ে নানা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সপ্তাহটি পালন করে। সপ্তাহটি পালনে ব্র্যাককে সহযোগিতা প্রদান করেছে জনকল্যাণমূলক এবং উদ্ভাবনী উদ্যোগের আন্তর্জাতিক সংস্থা এফআইএ ফাউন্ডেশন।

এ উপলক্ষে ব্র্যাক রোড সেফটি প্রোগ্রাম ঢাকা ও ঢাকার বাইরে স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের সড়ক নিরাপত্তায় সচেতনতামূলক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা করে, সড়ক নিরাপত্তা সংক্রান্ত অঙ্গীকারনামায় পরিবহন মালিক ও শ্রমিক, শিক্ষকসহ সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার কর্মীদের স্বাক্ষর সংগ্রহ করে এবং ব্লগ, ফেসবুক ও টুইটারের মতো ব্র্যাকের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে সপ্তাহটির গুরুত্ব তুলে ধরে সচিত্র প্রচারণার আয়োজন করে।

বাংলাদেশে সড়ক দুর্ঘটনার উঁচু হার এবং প্রতি বছর হাজার হাজার শিশুর প্রাণহানি ও পঙ্গুত্ববরণ আমাদের দেশের জন্য এই সপ্তাহকে আরো প্রাসঙ্গিক করে তুলেছে। ২০১৬ সালের এক হিসাব অনুযায়ী বাংলাদেশে সড়ক দুর্ঘটনার কারণে প্রতি বছর প্রায় ৫ হাজার (গড়ে প্রতিদিন ১৪ জন) শিশুর প্রাণহানি ঘটে। এর মধ্যে অনেকেরই মৃত্যু ঘটে স্কুলে যাতায়াতের পথে।

আমাদের কর্মস্থল

                

ব্র্যাক কুইজ

কোনটি দারিদ্র্য দূরীকরনের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি কার্যকরী?

বিকল্প যোগাযোগ পন্থা